৪ঠা জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ| ১৮ই মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ| ১০ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি| দুপুর ১:০৪| গ্রীষ্মকাল|
শিরোনাম :
সখীপুরে সংসদ সদস্যকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে মানববন্ধন আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে পাঁচবিবিতে জনমতে আলোচনার র্শীষে শিখা। রাজবাড়ীতে হত্যা মামলায় চারজনকে যাবজ্জীবন, একজনকে বেকসুর খালাস রাজবাড়ীতে ওয়াসার প্রকৌশলীসহ ৫জনের বিরুদ্ধে গাছ চুরির মামলা বালিয়াকান্দিতে স্কুলে গিয়ে আনারস প্রতিকে ভোট প্রার্থনার অভিযোগ। ফেনী ডেভেলপমেন্ট কমিউনিটির ৩য় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে র‍্যালী মহানবী (সা.)কে নিয়ে ক*টু*ক্তি করায় ফেনীর সবজির আড়তে বাদল নামের একজনকে গণধোলাই পাঁচবিবিতে উপজেলা নির্বাচনে প্রচার প্রচারনায় ব্যাস্ত প্রার্থীরা মোরেলগঞ্জে ছুরিকাঘাতে যুবক খুন মোরেলগঞ্জে এক ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার

ঝালকাঠিতে অবশেষে বদলী হলেন ট্রাফিক পুলিশের বিতর্কিত টিআই হাবিব

ঝালকাঠি উপজেলা প্রতিনিধি
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২৩
  • ১৩১ বার পঠিত

ঝালকাঠিতে অবশেষে বদলী হলেন ট্রাফিক পুলিশের বিতর্কিত টিআই হাবিব

উপজেলা প্রতিনিধি:

ঝালকাঠি ট্রাফিক পুলিশের বিতর্কিত পরিদর্শক (টিআই) হাবিব। বৃহস্পতিবার এ আদেশ সম্পন্ন হলেও শুক্রবার ঝালকাঠি ট্রাফিক পুলিশের দায়িত্ব থেকে তাকে সড়িয়ে নেয়া হয়। জেলা পুলিশের ডি-ষ্টোরের দায়িত্বে ন্যাস্ত করে তাকে ঝালকাঠি পুলিশ লাইনে নেয়া হয়েছে।

ঝালকাঠি পরিবহন সেক্টরে দীর্ঘদিনধরে মুর্তিমান আতংকের নাম ছিলো টিআই হাবিব। পুলিশের এই কর্মকর্তার বেপরোয়া চাঁদাবাজি ও হুমকি- ধামকিতে অতিষ্ট হয়ে পড়েছিলো পরিবহন ও
মটরসাইকেল চালকরা।জেলার বিভিন্ন স্থানে সকাল সন্ধ্যা নানা অজুহাত দেখিয়ে বিভিন্ন জাতের গাড়ী আটক করে টিআই হাবিব নিজেই। মোটরযান অপরাধ আইন অনুযায়ী যানবাহনে ত্রুটি বা চালকের অপরাধ হলে পজ মেশিন দিয়ে ঘটনাস্থলেই মামলা দেয়ার বিধান ধাকলেও হাবিবের বিধান ছিলো ভিন্ন। তিনি ধরন বুঝে মোটর সাইকেল ধরে ঘটনাস্থলে ব্যবস্থা না নিয়ে বাইক আটক করে নিয়ে যায় তার কার্যালয়ে সদর পুলিশ ফাঁড়ির অভ্যন্তরে লুকিয়ে রাখা হয় সেই গাড়ি। পরে সুযোগ বুঝে টাকার বিনিময়ে ছেড়ে দিচ্ছে সেই গাড়ি। বেশ কিছুদিন অনুসন্ধান করে গনমাধ্যম কর্মীদের।কাছে প্রমান মেলে হাবিবের অর্থ বাণিজ্যের এসব চিত্র।তবে সম্প্রতী ঝালকাঠি পুলিশ সুপার বিষয়টি জানতে পেরে পুলিশের অন্যান্য কর্মকর্তা ও সাধারন মানুষের কাছ থেকে হাবিব সম্পর্কে খোঁজ খবর নিতে থাকেন। আর এই তথ্য টিআই হাবিব বুঝতে পারায় কমে যায় হাবিবের অবৈধ বাণিজ্য।

মোটর সাইকেল আটক বানিজ্য ছাড়াও কুরিয়ার সার্ভিস, পার্সেল পরিবহন, কাভার্ড ভ্যান, টমটম, অটো রিক্সা ইজিবাইক এবং ভাড়ায় চালিত মাইক্রোবাস থেকেও নিচ্ছে নিয়মিত মাসোয়ারা। এতে গাড়ি মালিকরা রীতিমত যেভাবে অসহায় হয়ে পড়েছে, তেমনি পরিবহণ ব্যবসা গুটিয়ে ফেলারও উপক্রম দেখা দিয়েছে। টিআই হাবিবের বদলির এমন সিদ্ধান্তে পুলিশ সুপারকে

ধন্যবাদ জানিয়ে স্বস্তির নিঃশ্বাস ছেড়েছে

যানবাহন চালক ও সংশ্লিষ্টরা।তবে এসব অভিযোগ অকপটে অস্বীকার করেন ট্রাফিক পুলিশের অভিযুক্ত ইন্সপেক্টর হাবিব। গণমাধ্যমকে জানান ‘পুলিশ সুপার বেশ কিছুদিন ধরে আমার উপর অসন্তুষ্ট, তার কাছে কেউ হয়তো বলেছে আমি অনৈতিক সুবিধা গ্রহন করি। তাই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তবে টিআই থেকে ডি-ষ্টোরে বদলীটা আমার জন্য ভালো হয়েছে।আমি ওখানে বেশ পেরেশানি থাকতাম।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর